রাম রাজ্যেই রাম ধাক্কা খেলেন, এবার কী মোদী ম্যাজিকে ধস!

banner

#Pravati Sangbad Digital Desk:

রাম রাজ্যেই রাম ধাক্কা খেলেন, এবার কী মোদী ম্যাজিকে ধস!

এক দশক পরে আবার একদলীয় শাসনের ইতি হতে চলেছে ভারতে। সেই সঙ্গে অষ্টাদশ লোকসভায় আনুষ্ঠানিক ভাবে ফিরতে চলেছে বিরোধী দলনেতার পদ।

এক্সিট পোল পরিসংখ্যান একেবারে পালটে দিল নির্বাচনের ফলাফল। যেখানে এনডিএ জোটকে চারশো আসনের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছিল বুথফেরত সমীক্ষাগুলো, সেখানে বাস্তবে দেখা গেল, ৩০০ পেরতেই হিমশিম খাচ্ছে বিজেপির জোট।


তৃতীয় বারের জন্য নরেন্দ্র দামোদর দাসের হাতেই দেশের ভার দিতে চলছে জনতা। তবে ভোটগণনার প্রবণতা বলছে, ২০১৪ এবং ২০১৯-এর মতো এ বার আর সংসদের নিম্নকক্ষে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছে না তাঁর দল বিজেপি। ‘৪০০ পার’ দূর অস্ত। মোদী ম্যাজিকে ধস!

কিন্তু এক্সিট পোল নস্যাৎ করে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাহুল গান্ধীর মতো বিরোধী নেতারা। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়েছিলেন, “এই এক্সিট পোল ফেক, আমরা মানি না।” ‘মোদি সমীক্ষা’ বলে এক্সিট পোলকে খোঁচা মেরেছিলেন রাহুল ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের মত ছিল, এই এক্সিট পোল হল জাল সাংবাদিকদের বিশ্লেষণ। যদিও এক্সিট পোলের পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দাবি ছিল, বিরোধী ইন্ডিয়া জোট মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করতে পারেনি বলেই নির্বাচনী ময়দানে ধরাশায়ী হবে। কিন্তু অষ্টাদশ লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল দেখিয়ে দিল, এক্সিট পোল সেভাবে বিশ্বাসযোগ্য নয়। আসল জয়ী-পরাজিত জানা যায় ইভিএম থেকেই।


চলতি বছরে ২২ জানুয়ারি অযোধ্যায় রাম মন্দিরের প্রাণ প্রতিষ্ঠার পর রাজনৈতিক মহল থেকে সাধারণ মানুষের ধারণা ছিল, একা রামলালাই ভোটের হাওয়া ঘুরিয়ে দেবেন। ৪ জুন লোকসভা নির্বাচনের ভোট গণনার দিনটা অবশ্য উল্টো কথাই বলছে। বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত রাউন্ড যত এগোচ্ছে, ততই কপালে ভাঁজ পড়েছে মোদি থেকে যোগীর। এনডিএ জোটকে পিছনে ফেলে অনেকটাই এগিয়ে গেছে ইন্ডিয়া জোট। গুরুত্বপূর্ণ আসন এখনও পর্যন্ত ইন্ডিয়া এবং কংগ্রেসের দখলেই।

উত্তরপ্রদেশের ৮০টি লোকসভা কেন্দ্রের মধ্যে ৪০টিতে এগিয়ে ইন্ডিয়া জোট (সমাজবাদী পার্টি ও কংগ্রেস)। ৩৯টি আসনে এগিয়ে এনডিএ। ২০১৯ সালে এ রাজ্যে ৬২টি আসনে জিতে দিল্লির মসনদ দখল করেছিল বিজেপি।


ফৈজাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের অযোধ্যায় তৈরি হয়েছে রাম মন্দির। সেই কেন্দ্রেই ধরাশায়ী বিজেপি। সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী অবধেশ প্রসাদের থেকে ২০ হাজার ২৭৯ ভোটে পিছিয়ে বিজেপির লাল্লু সিং। অন্যদিকে আমেঠিতে স্মৃতি ইরানি, মানেকা গান্ধীর মতো হেভিওয়েট প্রার্থীরা পিছিয়ে আছেন। বিপুল ভোটের ব্যবধানে এগিয়ে আছেন রাহুল গান্ধী, অখিলেশ যাদব, ডিম্পল যাবদরা। ভোটের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণার আগেই ইন্ডিয়া জোটের উত্তরপ্রদেশ দখলের ইঙ্গিত স্পষ্ট। যা ঘিরে পদ্ম শিবিরেও চরম অস্বস্তি বাড়ছে।

শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, ২৯৬ আসনে এগিয়ে এনডিএ। ২৩০টি আসনে এগিয়ে ইন্ডিয়া।

#Source: online/Digital/Social Media News # Representative Image

Journalist Name : প্রিয়শ্রী

Related News