Flash news
    No Flash News Today..!!
Monday, May 27, 2024

মাত্র ১৩ বছরের বালক গড়ে তুলেছে ১০০ কোটি টাকার কোম্পানি

banner

#Pravati Sangbad Digital Desk:

সবাই তার জীবনে সফল হতে চায়, নিজেকে সফলতার চূড়ায় দেখতে চায়। যার জন্য কঠোর পরিশ্রম করতে হয়। আজ এমনই এক শিশুর কথা বলা হবে, যে খুব কম বয়সে এমন একটি কাজ করেছে, যা কেউ কল্পনাও করতে পারেনি। ১৫ বছরের এই ছেলেটি ব্যবসার জগতে নিজের নাম তৈরি করেছে। মুম্বাইতে বসবাসকারী এই ছেলেটির নাম তিলক মেহতা। সে তার আইডিয়া এবং কাজ দিয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছে। তিলক মেহতার এতো ছোটো বয়সেই বিজনেস এর কাজের পেছনে কারণ হল তার বাবার পরিশ্রম। তিলকও সাধারণ শিশুদের মতো কিন্তু তার চিন্তাভাবনা তাকে আজ জনপ্রিয় করে তুলেছে। অন্য শিশুরা যখন খেলতে ব্যস্ত ছিল ঠিক তখনই ১৩ বছর বয়সী তিলক, অষ্টম শ্রেণীতে পড়তে পড়তেই শুরু করেন নিজের ব্যবসা। পেপার অ্যান্ড পার্সেল নামে একটি কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করে খুদে তিলক। বর্তমানে কোম্পানিটির বার্ষিক টার্নওভার ১০০ কোটি ছাড়িয়েছে, যা নিজের মধ্যে একটি বিশাল সাফল্য। পেপার এবং পার্সেল কোম্পানির কাজ হল গ্রাহকদের কাছে খুবই কম সময়ে এবং স্বল্প অর্থের মধ্যে স্টেশনারি সামগ্রী সরবরাহ করা, যাতে কোনও শিশুর পড়াশোনায় কোনও সমস্যা না হয়।

তিলক মেহতা মুম্বাইয়ের ডাব্বাওয়ালাদের সাহায্য নেন, যারা খুব অল্প সময়ে পণ্য সরবরাহের করতে পারে। মুম্বাই সহ আশেপাশের অঞ্চলে তাড়াতাড়ি পণ্য পৌঁছে দিতে এনাদের জুড়ি নেই। পেপার এবং পার্সেল কোম্পানি যেকোনো পণ্য সরবরাহের জন্য ৪০ থেকে ১৮০ টাকা চার্জ করে, যা অন্যান্য পার্সেল কোম্পানির তুলনায় অনেক সস্তা এবং সুবিধাজনক। বর্তমানে ৩০০ ডাব্বাওয়ালা সহ ২০০ জন সাধারণ নাগরিক পেপার এবং পার্সেল কোম্পানির সাথে যুক্ত, যারা প্রতিদিন একাধিক পার্সেল সরবরাহ করে। কোনও ব্যক্তিকে যদি স্টেশনারি সম্পর্কিত কোনো পণ্যের পার্সেল পেতে হয়, তিনি অনলাইন অ্যাপের মাধ্যমে অর্ডার দিতে পারেন। এরপর কোচম্যানদের সহায়তায় সেই পার্সেল গ্রাহকের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়, যার ফলে কোম্পানির কাজও হয় এবং কোচম্যানও বাড়তি আয় করেন। তিলক তার ব্যবসা সম্পর্কে একটি সাক্ষাত্‍কারে বলেছিলেন যে 'ডাব্বা ওয়ালারা আমাকে একটি ছোট বাচ্চা বলে মনে করেছিল এবং আমার কথাগুলি খুব আদরের সাথে গ্রহণ করে। তবে শুরুতে টাকাও দাবি করেনি তারা।'  আজ ক্ষুদে তিলক শুধুমাত্র বড় ব্যবসাই তৈরি করেনি, ডাব্বাওয়ালাসহ অনেকের কর্মসংস্থানের পাশাপাশি অভাবী মানুষকে সময়মতো বইও দিয়েছে। তার এই সাফল্য বহু মানুষকে নিজেদের চলার পথে এগিয়ে যাওয়ার অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে।

#Source: online/Digital/Social Media News # Representative Image

Journalist Name : Sampriti Gole

Tags:

Related News