Flash news
    No Flash News Today..!!
Sunday, July 21, 2024

চুলের সমস্যার সেরা সমাধান

banner

#Pravati Sangbad Digital Desk:

লক্ষ লক্ষ মানুষ আছে যারা তাদের চুল পড়া নিয়ে চিন্তিত, বিশেষ করে মহিলারা এটি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন। চুল পড়ার অনেক কারণ রয়েছে যেমন বংশগত, হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, মানসিক চাপ, ওষুধ ইত্যাদি। তবে চুল পড়ার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল সঠিক খাবার না খাওয়া। চলুন জেনে নেওয়া যাক ছয়টি ডায়েট সম্পর্কে, যা স্বাস্থ্যকর চুলের বৃদ্ধির জন্য উপকারী।
মাছ: কিছু মাছ স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য ভালো। টুনা, ম্যাকেরেল, সালমন এবং হেরিং এর মত মাছে ওমেগা-৩, ভিটামিন ডি ও বি, প্রোটিন এবং সেলেনিয়াম রয়েছে। এই সমস্ত খনিজ এবং পুষ্টি চুলের বৃদ্ধির জন্য ভাল।
ডিম: ডিম হল প্রোটিন এবং বায়োটিনের অন্যতম সেরা উত্‍স, যা চুলের অবিচ্ছেদ্য উপাদান। এগুলি ছাড়াও ডিমে রয়েছে সেলেনিয়াম এবং জিঙ্ক, যা চুল পড়া প্রতিরোধে ভাল। বায়োটিনের অভাবজনিত সমস্যার কারণে বিপুল সংখ্যক মহিলার চুল পড়ার সমস্যা রয়েছে। প্রোটিন খাওয়া চুলের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কারণ চুলের ফলিকলগুলি বেশিরভাগ প্রোটিন দ্বারা গঠিত। বায়োটিনও গুরুত্বপূর্ণ কারণ এটি কেরাটিন নামক চুলের প্রোটিন উত্‍পাদনে সাহায্য করে। এটা পরিষ্কার যে কেন ডিম স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।
সবুজ শাকসবজি: গাঢ় সবুজ শাকসবজি যেমন পালং শাক এবং কলার্ডে ভিটামিন সি,আয়রন, বিটা ক্যারোটিন এবং ফোলেট থাকে। এই সব পুষ্টিগুণ স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য ভালো। আয়রন চুলের ফলিকলকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে এবং ভিটামিন এ উপস্থিত তেল মাথার ত্বকের ময়শ্চারাইজিং নিশ্চিত করে।
ফল: বেরি, চেরি, এপ্রিকট, আঙ্গুর এবং কমলালেবুর মতো গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান যেমন অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি, যা চুলের বৃদ্ধি বাড়ায়। মূলত, এই পুষ্টিগুলি চুলের ফলিকলগুলিকে শক্তিশালী করে। ভিটামিন সি শরীরে আয়রন শোষণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে, যার ফলে কোলাজেন তৈরি হয়। পর্যাপ্ত আয়রন শরীরে থাকা উচিত অন্যথায়, এটি রক্তাল্পতা হতে পারে, যা চুল পড়ার অন্যতম কারণ। আমরা সবাই জানি যে কোলাজেন চুলের ফলিকলকে রক্ষা করে যার ফলে চুল পড়া রোধ করে। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্ষতিকারক অণুগুলিকে র্যাডিকেল বলে প্রতিরোধ করে, যা চুলের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল নয়।
বাদাম: যারা চুল পড়ার কারণে বেশ চিন্তিত এবং উদ্বিগ্ন, তাদের বাদাম খাওয়া শুরু করা উচিত যেমন আখরোট, বাদাম, শনের বীজ, চিয়া বীজ এবং ব্রাজিল বাদাম, কারণ এতে ভিটামিন ই, জিঙ্ক, সেলেনিয়াম এবং ওমেগার মতো গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি রয়েছে। এই সমস্ত পুষ্টিগুণ চুলের জন্য উপকারী এবং অসময়ে চুল পড়া রোধ করে।
মিষ্টি মরিচ: মিষ্টি মরিচ ভিটামিন সি এবং এ-এর চমত্‍কার উত্‍স, যা স্বাস্থ্যকর চুলে সাহায্য করতে পারে। মিষ্টি মরিচে ভিটামিন সি এর উপস্থিতি কোলাজেন তৈরিতে সাহায্য করে যা চুলের ফলিকলকে শক্তিশালী করে। এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের সাথে লোড করা হয়, যা অক্সিডেটিভ স্ট্রেসের বিরুদ্ধে লড়াই করে।

চুলের স্বাস্থ্যের জন্য 6টি খারাপ খাবার
সোর্ডফিশ: এতে উচ্চ মাত্রার পারদ থাকে, যা চুলের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়।
চিনি: স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য, চিনি পরিহার করা উচিত কারণ এটি প্রোটিন শোষণে বাধা দেয়। পাউরুটি, কেক, পেস্ট্রি এবং সাদা পাস্তা চুল পাতলা করতে উত্‍সাহিত করে। অ্যালকোহল গ্রহণ, জিঙ্কের শোষণকে ধীর করে দেয় । অন্যদিকে, অতিরিক্ত অ্যালকোহল গ্রহণও চুলকে ভঙ্গুর করে তোলে। গবেষকদের মতে, সোডায় অ্যাসপার্টাম সুইটনার থাকে, যা চুলের ফলিকলকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। জাঙ্ক ফুডও বাঞ্ছনীয় নয়।চুল সম্পর্কে 10টি সেরা তথ্য
এটা জানা বেশ আকর্ষণীয় যে চুল প্রতি মাসে প্রায় 1.25 সেমি এবং প্রতি বছর 15 সেমি বৃদ্ধি পায়। দৈনিক ভিত্তিতে চুল পড়া অস্বাভাবিক নয়, আসলে এটি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক। অ্যাভোকাডো ভিটামিন ই এর চমত্‍কার উত্‍স, যা চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করতে পারে। ডিম, বাদাম, মটরশুটি, মাছ, দুগ্ধজাত খাবার এবং মুরগির মতো খাবারে পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে। নিয়মিত মাথার ত্বক হালকা শ্যাম্পুর সাহায্যে ধুয়ে স্বাস্থ্যকর ও পরিষ্কার করতে হবে। নারকেল তেল এবং অলিভ অয়েলের ব্যবহার চুলের স্বাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। আঁটসাঁট বিনুনি বা পনিটেল এড়ানো উচিত, স্ট্রেটেনিং আয়রন ব্যবহার করা চুলের খাদকেও ক্ষতি করে। রাসায়নিক চিকিৎসা যেমন perms, ইত্যাদি ব্যবহার নিরুত্‍সাহিত করা উচিত। চুল বেশিরভাগ কেরাটিন দ্বারা গঠিত।

#Source: online/Digital/Social Media News # Representative Image

Journalist Name : Ashapurna Das Adhikary

Tags:

Related News